Skip to content

চোখ উঠা রোগ

Spread the love

এই সময়টাতে অনেকের চোখ উঠা রোগ দেখা দিচ্ছে। এখন যেকোনো পরিবারে কোনো না কোনো মেম্বার এই চোখ উঠা রোগে আক্রান্ত। আজকে আমরা দেখবো চোখ উঠলে এর প্রধান লক্ষণ কি হতে পারে এবং এর থেকে কিভাবে প্রতিকার পেতে পারি।

চোখ উঠা কে ভাইরাল কনজাংটিভাইটিস ও বলা হয়।

চোখ উঠা রোগের লক্ষণ ও উপসর্গ

১. চোখের সাদা অংশ লাল হয়ে যাওয়া।

২. চোখের পাতা ফুলে যাওয়া।

৩. ঘুম থেকে উঠার পর চোখের দুই পাতা এক সাথে লেগে থাকা।

৪. চোখ দিয়ে পানি পরা।

৫. চোখে জ্বালা পোড়া ও চুলকানি হওয়া।

৬. চোখে হলুদ বা সাদা রঙের ময়লা জমা।

৭. আলোতে দেখতে সমস্যা হওয়া।

৮. দেখতে সমস্যা হওয়া।

চোখ উঠা রোগ

চোখ উঠা রোগ হলে করণীয়

১. আক্রান্ত ব্যক্তি সংস্পর্শ এড়িয়ে চলুন।

২. চোখ লাল হয়ে গেলে জনসমাগম এড়িয়ে চলুন।

৩. চোখে হাত লাগাবেন না।

৪. চোখে পানি দিবেন না।

৫. উজ্জ্বল আলো কিংবা সূর্যালোকে কালো চশমা কিংবা সানগ্লাস ব্যবহার করুন।

৬. চোখের পাতা ফুলে গেলে শুকনো গরম সেঁক দিতে পারেন।

৭. ব্যবহার্য জিনিসপত্র যেমন কাপড়চোপড়, গ্লাস, প্লেট, গরম পানি দিয়ে ধৌত করুন এবং আলাদা রাখুন।

৮. কোনো অবস্থাতেই ফার্মেসী বা ঔষধের দোকান থেকে নিজে নিজে ঔষধ কিনে ব্যবহার শুরু করবেন না। চোখ অত্যন্ত সংবেদনশীল অঙ্গ। নিজে নিজে ডাক্তারির ফলে চোখের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

সাধারণত জটিল কোনো উপসর্গ না থাকলে ৭-১০দিনের মধ্যেই এটি সেরে যায়।

কখন চিকিৎসকের শরণাপন্ন হবেন?

১. চোখ থেকে অনবরত পানি ঝরতে থাকলে

২. কেতুরের জন্য চোখ খুলতে অসুবিধা হলে

৩. চোখে পুর্বের চাইতে ঝাপসা দেখলে

৪. চোখে ব্যথা শুরু হলে

 


Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!